মেনু নির্বাচন করুন

মেহার উচ্চ বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

১.৮৫ ভূমির উপর খেলার মাঠ সহ বর্তমনে সর্বমোটে ১৪ কক্ষ ও এক দিকে প্রাচীর ঘেরা উপজেলা সদরের ২ কি:মি: দুরে সদর রাস্তার পূর্ব পার্শ্বে মনোরম পরিবেশে উপলতা নামক স্থানে বিদ্যালয়টির অবস্থান। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে মানবিক, বাণিজ্য ও বিজ্ঞান বিভাগ চালু আছে।

০১-০১-১৯১৯

১৯১৯ সনে প্রতিষ্ঠিত এলাকার সাহাপুর গ্রামের মেহারেশ্বরী সতীন্দ্র উচ্চ ইংরেজি উচ্চ বিদ্যালয় এবং নিজমেহার গ্রামের মেহারেশ্বরী সুকুল উচ্চ ইংরেজি বিদ্যালয় ২টি স্থানীয় জমিদার বাবু সতীন্দ্র মোহন ঠাকুর ও জমিদার বাবু কামতা প্রসাদ সুকুল পরিচালনা করিয়া আসিতেছিলেন। জমিদারী প্রথা বিলুপ্তির সাথে সাথে বিদ্যালয় ২টির দৈন্যদশা দেখিয়া তৎকালীন চট্টগ্রাম বিভাগের বিদ্যালয় সমূহের পরিদর্শক মি. জেংকিং সাহেব দুইটি বিদ্যালয়কে একত্রিত করার পরামর্শ দেন। দুই জমিদারের মর্যাদা রক্ষা করিতে তৃতীয়পক্ষ ১। বাবু দক্ষিণা রঞ্জন ভট্টাচার্য্য, ২। বাবু আসন্ন বন্ধু ভট্টাচার্য্য ৮৪ শতক ভূমি দান করেন এবং মেহারেশ্বরী সতীন্দ্র এন্ড সুকুল হাই ইংলিশ স্কুল নামে বর্তমান স্থানে ১৯৩৩ ইংরেজি সনে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ১৯৩৪ ইংরেজি সনে বিদ্যালয়টি নতুন ভাবে কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয় হইতে প্রথম সরকারের স্বীকৃতি লাভ করে। ১৯৫৫ সনে বিদ্যালয়টির পুন: নামকরণ করা হয় মেহার উচ্চ বিদ্যালয়।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
প্রদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী ০১৭১৬৯৮৯১৯৭ priojit@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল

৬ষ্ঠ

৭ম

৮ম

৯ম

 

৯৬

১১৬

৯৪

১০২

 

৪৮৩ জন

এসএসসি-৯৫.১২% (২০১৪) জেএসসি- ৯৮.৫% (২০১৪)

নাম

পদবি

মোবা: নং

গ্রাম

মানিক লাল দত্ত

সভাপতি

০১৭১০৩১৫১৯৪

উপলতা

প্রদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী

সদস্য সচিব

০১৭১৬৯৮৯১৯৭

উপলতা

মো. নজমুল হক

সদস্য

০১৭১৫১৯৬৪৯৬

উপলতা

সন

শ্রেনী

৬ষ্ঠ

৭ম

৮ম

৯ম

১০ম

অংশগ্রহণকারী

উর্ত্তীণ©

অংশগ্রহণকারী

উর্ত্তীণ©

অংশগ্রহণকারী

উর্ত্তীণ©

অংশগ্রহণকারী

উর্ত্তীণ©

অংশগ্রহণকারী

উর্ত্তীণ©

২০১০

১১৫

১১০

৯৪

৯২

৮০

৮০

৭৯

৭৫

৬৬

৬৫

২০১১

১০৭

১০৫

১১০

১০৭

৯২

৯০

৭০

৭০

৭১

৬৬

২০১২

১০৩

১০২

১২১

১১৫

১১৮

১০৮

৯১

৯০

৭৭

৬৬

২০১৩

১০৪

১০২

৯৯

৯৯

১০৩

১০৩

১১০

১০৫

৮২

৮২

২০১৪

১১৮

১১২

১০২

৯৪

১০৫

১০২

৮৬

৮৬

৯৭

৯৭

২০১৪ সালে জেএসসি পরীক্ষায় ৩ জন সাধারণ বৃত্তি প্রাপ্ত।

স্বাধীনতা সংগ্রামে এই বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক মুক্তিযুদ্ধে সক্রীয় ভাবে অংশগ্রহণ করে। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগের সময় বিদ্যালয়টি আশ্রয় ও ত্রান বিতরণ কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করে বিভিন্ন পুরষ্কার অর্জন করে। বিদ্যালয়টি কারিগরি শাখা খোলা এবং উচ্চ মাধ্যমিক শ্রে্ণি চালু করণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার আন্দোলনে শরিক হওয়া, বিদ্যালয়ের ফলাফলের গুনগত মান বৃদ্ধি করত একটি আদর্শ বিদ্যালয়ে পরিণত করা।

বিদ্যালয়টি কারিগরি শাখা খোলা এবং উচ্চ মাধ্যমিক শ্রে্ণি চালু করণ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার আন্দোলনে শরিক হওয়া, বিদ্যালয়ের ফলাফলের গুনগত মান বৃদ্ধি করত একটি আদর্শ বিদ্যালয়ে পরিণত করা। উপজেলা পরিষদ থেকে সিএনজি, রিক্সা যোগে ঠাকুর বাজারের উত্তরপার্শ্বে দোয়াভাঙ্গা-উপজেলা পরিষদ রাস্তার পূর্ব পাশ্বে। 

উপজেলা পরিষদ থেকে সিএনজি, রিক্সা যোগে ঠাকুর বাজারের উত্তরপার্শ্বে দোয়াভাঙ্গা-উপজেলা পরিষদ রাস্তার পূর্ব পাশ্বে। 

আরেফিন হাবিব আওন, মেহেরাব হোসেন, অর্পিতা ভট্টাচার্য্য, সাবিকুন নাহার, সুমাইয়া হক জেরিন, বৃষ্টি আচার্য্য, নাফিসা খাঁন, জোহরা কাশেম, জি. এস. এম তানজিদ মাহমুদ, অনুপম প্রভাকর।



Share with :

Facebook Twitter